কৃতজ্ঞতা

Data is the new oil.

— Clive Humby

তিনটি প্রতিষ্ঠান। যারা আমাকে সাহায্য করেছেন ডেটা নির্ভর প্রজ্ঞা অর্জন করতে। দিয়েছেন দরকারি প্রশিক্ষণ। ডেটাকে বুঝতে। ২৭ বছর ধরে। ১. সিগন্যালস কোর, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, ২. বাংলাদেশ টেলিকম্যুনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন, ৩. ন্যাশনাল টেলিকম্যুনিকেশন মনিটরিং সেন্টার। রেখেছেন টেলিকম্যুনিকেশন প্রযুক্তির সাথে। অসাধারণ একটা 'ক্যারিয়ার' তৈরি করে দিয়েছেন আমার। শিখিয়েছেন কিভাবে ডেটাকে যুক্ত করতে হয় সরকারি প্রজ্ঞাতে। মানুষের সাহায্যে। ধন্যবাদ সরকারি এই তিনটি প্রতিষ্ঠানকে।

টেলিকম্যুনিকেশন প্রযুক্তির হৃদয়ের ভেতরে পুঁথিগত এবং 'হাতেকলমে'র অংশগুলো বুঝতে পারি সেনাবাহিনীর সিগন্যালস স্কুলে গিয়ে। সিগন্যাল কোরের নতুন অফিসারদের জন্য এই বাধ্যতামূলক এক বছরের কোর্স আমাকে যতোটুকু "ইনসাইট" দিয়েছে তা ব্যবহার করেই চলছি এখনো। ইলেক্ট্রনিক্স, ডিজিটাল সিগন্যালিং মড্যুলেশন, রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি প্রোপাগেশন শক্ত করে দিয়েছে আমার হবিগুলোকে। কমিউনিকেশন ডিভাইস তৈরির জন্য সবাইকে "এনাবল" করাই আমার মূলমন্ত্র। ধন্যবাদ সিগন্যালস স্কুল। টেলিকম্যুনিকেশন প্রযুক্তির হৃদয়ের অতল বুঝতে। নেশাকে পেশায় পাল্টে দিতে।

বাংলাদেশের টেলিযোগাযোগ সার্ভিস প্রদানকারী কোম্পানিগুলোর অসাধারণ প্রজ্ঞার উদ্যোক্তা। যারা আমাকে হাতেকলমে দেখিয়েছেন ভেতরের ইকোসিস্টেম। এন্ড টু এন্ড। পাশাপাশি সিলিকন ভ্যালির আন্তর্জাতিক ডেটানির্ভর কোম্পানিগুলোতে কর্মরত আছেন সেই বন্ধুরা। যারা দেখিয়েছেন কিভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা পাল্টে দিচ্ছে পৃথিবীর অনেক ধ্যান ধারণা। যারা প্রতিনিয়তঃ দেখাচ্ছেন কিভাবে প্রেডিক্ট করতে হয় ভবিষ্যৎ।

স্বাতী, আমার স্ত্রী - যিনি আমাকে ছেড়ে দিয়েছেন একটা পুরো ঘর, "আর এন্ড ডি" ল্যাব হিসেবে। সংসারের সব দ্বায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়ে ছেড়ে দিয়েছেন আমাকে। ধন্যবাদ স্বাতীকে।

আমার বই, ভিডিও এবং ব্লগ পাঠক। যাদের প্রতিটা প্রশ্ন আমাকে শেখাচ্ছে নতুন করে চিন্তা করতে। প্রতিদিন। অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাদের। আপনারাই আমাকে উদ্বুদ্ধ করছেন নতুন কিছু শিখতে। প্রতিদিন। টু বিকাম অ্যা রিয়েল প্রবলেম সল্ভার।

বইটা লেখার জন্য প্রায় ৯টার মতো বইয়ের ধারণা নিয়েছি এখানে। পেছনে দিয়েছি সেটা। তবে, আমাকে মুগ্ধ করেছে ডেটাস্কুলের কেভিন মার্কহামের শুরুর দিকের ভিডিও টিউটোরিয়ালগুলো। আমি তার আইরিস ডেটাসেটের ধারণাটা ব্যবহার করেছি এই বইয়ে। ধন্যবাদ কেভিন।

অংককে পানির মতো লেভেলে আনতে ধন্যবাদ ডাক্সকে। টুয়ার্ডসডেটাসাইন্স.কম থেকে।

এই বইটা লেখার পেছনে সবচেয়ে বেশি শোনা হয়েছে কেইসি মাসগ্রেভের "গোল্ডেন আওয়ার" অ্যালবামটা।